টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল নিয়ে ১০টি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জেনে রাখুন

খেলাধুলো

HNExpress নিজস্ব প্রতিনিধি : ১. ১৮ থেকে ২২ জুন সাউদাম্পটনে খেলা হবে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল। ২৩ জুন রিজার্ভ ডে হিসেবে চিহ্নিত করে রাখা হয়েছে।

SHEIN Many GEO's

২. ম্যাচ যদি ড্র বা পরিত্যক্ত হয়, ভারত ও নিউজিল্যান্ড উভয় দলকে সেক্ষেত্রে যুগ্ম চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করা হবে।

Times Prime [CPA] IN Times Prime [CPA] IN

৩. শুধু নিরপেক্ষ মাঠ ও নিরপেক্ষ আম্পায়ারই নয়, বরং ম্যাচে ব্যবহৃত হবে নিরপেক্ষ বল। ভারতীয় দল ঘরের মাঠে এসজি বলে খেলতে অভ্যস্ত। নিউজিল্যান্ড খেলে কোকাবুরা বলে। ইংল্যান্ডে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল খেলা হবে ডিউক বলে।

Pharmeasy [CPS] IN

৪. রিজার্ভ ডে রাখা হলেও তা টাই-ব্রেকার বা ফুটবলের ধাঁচে অতিরিক্ত সময়ে ম্যাচের নিস্পত্তির জন্য ব্যবহার করা যাবে না। যদি প্রাকৃতিক বা অন্য কোনও কারণে নেট প্লেয়িং টাইমের কোটা পূর্ণ করা না যায়, একমাত্র তখনই ম্যাচ রিজার্ভ ডে বা ষষ্ঠ দিনে গড়াবে।

SHEIN Many GEO's

৫. যদি ম্যাচের কোনও এক দিনে বৃষ্টি বা মন্দ আলোর জন্য বেশ কয়েক ঘণ্টার খেলা নষ্ট হয় এবং যদি পাঁচ দিনের মধ্যে সেই খামতি মিটিয়ে দেওয়া যায়, তবে রিজার্ভ ডে’তে ম্যাচ গড়াবে না।

৬. বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ফাইনালের বিজয়ী দল ১.৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলার (ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ১২ কোটি টাকা) পুরস্কার হিসাবে পাবেন। রানার্স দল পাবে এর অর্ধেক পুরস্কার মূল্য।

৭. নিউজিল্যান্ডের স্কোয়াড: টম ব্লান্ডেল (উইকেটকিপার), ট্রেন্ট বোল্ট, ডেভন কনওয়ে, কলিন ডি’গ্র্যান্ডহোম, কাইল জেমিসন, ম্যাট হেনরি, টিম সাউদি, টম লাথাম, বিজে ওয়াটলিং (উইকেটকিপার), উইল ইয়ং, হেনরি নিকোলস, আজাজ প্যাটেল, রস টেলর, নেইল ওয়াগনার ও কেন উইলিয়ামসন (অধিনায়ক)।

৮. ভারতের প্রথম একাদশ: রোহিত শর্মা, শুভমন গিল, চেতেশ্বর পূজারা, বিরাট কোহলি (অধিনায়ক), অজিঙ্কা রাহানে, ঋষভ পন্ত (উইকেটকিপার), রবিচন্দ্রন অশ্বিন, রবীন্দ্র জাদেজা, জসপ্রীত বুমরাহ, ইশান্ত শর্মা, মহম্মদ শামি।

৯. টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে ফলো-অনের নিয়ম: টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল খেলা হবে ১৮-২২ জুন। ২৩ জুন রিজার্ভ ডে। অর্থাত্‍ নির্ধারিত ৫ দিনের পরেও এক দিন বাড়তি রয়েছে। তাই প্রথম দিনের খেলা ভেস্তে গেলে ম্যাচ রিজার্ভ ডে’তে গড়াবে। ফলে ম্যাচের দৈর্ঘ্য থাকবে ৫ দিনেরই। তাই প্রথম দিনে খেলা না হলেও ফলো-অনের জন্য ২০০ রানের লিড দরকার হবে। তবে যদি প্রথম দু’দিনের খেলা ভেস্তে যায়, সেক্ষেত্রে রিজার্ভ ডে মিলিয়ে ম্যাচের দৈর্ঘ্য দাঁড়াবে ৪ দিনের। তখন ১৫০ রানের লিড থাকলেই বিপক্ষকে ফলো-অন করানো যাবে।

১০. ফিল্ড আম্পায়ার শর্ট-রান ঘোষণা করলে টেলিভিশন আম্পায়ার নিজে থেকেই সেটা যথাযথ কিনা, তা যাচাই করে নেবেন। ভুল হলে আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত শুধরে নেওয়া যাবে।