মেসার্স ইক্যুয়িপ্ট এর ফ্যাশন শো ‘র প্রস্তুতি অনুষ্ঠান

বিনোদন

HNExpress নিজস্ব প্রতিনিধি : আড়ম্বরপূর্ণ ও আভিজাত্যের যুগলবন্দীর এক ঐতিহ্য রোম সাম্রাজ্যে বহুযুগ আগে থেকেই ছিল ইতিহাস বলছে, খ্রিস্টের জন্মের প্রায় ৩০০ বছর আগে থেকেই পুরুষ নারীর মেলামেশার ক্ষেত্রে পোশাক এক গুরুত্বপূর্ণ স্থান দখল করে আছে। পোশাক শুধু যে সৌন্দর্য বাড়ায় তা নয়, ব্যক্তিত্বের বিকাশেও সহযোগী হয়। এমন ধারণা থেকেই পোশাকের অভিনবত্বে বিশ্বে প্রথম স্থানে ছিল। পরবর্তী সময় ইউরোপসহ বিশ্বে ফ্যাশন ক্রমশ জনপ্রিয় হয়ে ওঠে। যদিও এই অভিনব আকর্ষণীয় পোশাক পরিধানের চল সমাজের বিত্তবানদের মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল, ক্রমশ তা সমাজের সর্বস্তরেই গ্রহণযোগ্য হতে শুরু করে।১৭০০ শতাব্দীতে যা বাণিজ্যিক পরিধি বাড়ায়।

SHEIN Many GEO's

সে যুগের ফ্যাশনকে বর্তমান যুগে তুলে ধরতে মারি ম্যাদলিন, লেসিয়ের এর মত পোশাক নির্মাণকারী সংস্থারা মডেলের সাহায্যে জনপ্রিয় করে তোলার পরিকল্পনা বাস্তবায়িত করে। আজকের ডিজিটাল দুনিয়ায় ফ্যাশন সচেতনতা জনপ্রিয়তায় আকাশচুম্বী হয়েছে বিশ্ব জুড়েই। ভারতও তার ব্যতিক্রম নয়। কলকাতারই এক সংস্থা মেসার্স ইক্যুইপ সম্প্রতি কলকাতার এক বিলাসবহুল ক্লাবে আয়োজন করে মিস্টার এন্ড মিস বেঙ্গল ইন্টারন্যাশনাল ২০০০ফ্যাশন শো’র প্রাক মূল পর্ব।অংশ নেন ৪৫জন প্রতিযোগী। চুলচেরা বিচারে বেছে নেওয়া হয় ৮ জন পুরুষ ও ৮ জন নারী।আগামী মার্চ মাসে কলকাতার এক সাত তারা হোটেলে অনুষ্ঠিত হবে প্রতিযোগিতার মূলপর্ব।

Times Prime [CPA] IN Times Prime [CPA] IN

সংস্থার প্রাণপুরুষ মনোজ গোস্বামী জানান,বিজয়ীদের উৎসাহিত করতে এক লাখ টাকা দেওয়া হবে।তাছাড়া সংস্থার প্রযোজনার একটি সিনেমায় ও বিভিন্ন সিরিয়ালে সুযোগ দেওয়া হবে।তাছাড়া নিজস্ব বিজ্ঞাপন সংস্থায় বিভিন্ন পণ্য উৎপাদক সংস্থায় ব্র্যান্ড অ্যামবাস্যাডর হিসেবেও সুযোগ দেওয়া হবে।আমরা এই প্রতিযোগিতায় শুধু সৌন্দর্য বিবেচ্য নয়,তাঁদের মানসিক চেতনার পূর্ণতা ও আন্তরিক সৌন্দর্য্যকেও প্রকাশিত হতে সাহায্য করি। কোভিড পরিস্থিতিতে ২০২০ র অনুষ্ঠান এখন করতে হচ্ছে।চলতি বছরের অনুষ্ঠান বছরের শেষে হবে।শীতের বিদায়বেলায় এক ঝাঁক নতুন প্রজন্মের এই প্রতিযোগিতায় দেখা গেল উৎসাহের সঙ্গে যোগ দিতে।তাঁদের চোখে দেখা গেল আত্মপ্রত্যয়ের ছায়া।

Pharmeasy [CPS] IN