ভারতে কমল দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা; সংক্রমিতের মোট ৮০% শতাংশই সুস্থ!

ওয়েব ডেস্ক করোনার কামড় (COVID-19)

HNExpress ওয়েব ডেস্ক : টানা চলছিল ৯০ হাজারের উপর! ৫ দিন পর ভারতে দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা ৯০ এর নিচে নামল। গত ৩ দিন ধরেই দেশে ২৪ ঘন্টায় সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৯০ হাজারেরও অধিক মানুষ। সুস্থতার পরিসংখ্যানে রেকর্ড গড়েছে ভারত।তবে গত ১ দিনে ভারতে করোনার নমুনা পরীক্ষা অনেক কম হয়েছে।এর ফলেই সংক্রমণের হার পৌঁছে গেছে সাড়ে ১১ % উপর। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৮৬ হাজার ৯৬১ জন।

SHEIN Many GEO's

এই একই সময়ে কিন্তু আমেরিকা এবং ব্রাজিলে আক্রান্ত হয়েছেন যথাক্রমে ৩৪ হাজার ৩৫০ এবং ১৬ হাজার ৩৮৯ জন। আক্রান্তের সংখ্যার নিরিখে গত ১ মাসের উপর ভারতে এই দুটো দেশ থেকে অনেক এগিয়ে আছে। সুস্থ তো হচ্ছেনই, তবে আক্রান্তের সংখ্যাটা উদ্বেগ সৃষ্টি করছে।কেন্দ্রের হিসেবে ভারতে বর্তমান মোট করোনাক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫৪ লক্ষ ৮৭ হাজার ৫৮০ জন।দৈনিক আক্রান্তের দিক থেকে মহারাষ্ট্র, অন্ধ্রপ্রদেশ ও কর্নাটক- ভারতে এগিয়ে।’

Times Prime [CPA] IN Times Prime [CPA] IN

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের রিপোর্ট বলছে, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার থাবায় প্রাণ হারিয়েছেন ১ হাজার ১৩০ জন। এ নিয়ে ভারতে এখনো পর্যন্ত মোট ৮৭ হাজার ৮৮২ জনের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে করোনাভাইরাস।এখনও পর্যন্ত ভারতে করোনা সারিয়ে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৪৩ লক্ষ ৯৬ হাজার ৩৯৯ জন।গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে ওঠা ব্যক্তির সংখ্যা ৯৩ হাজার ৩৫৬ জন।এই মুহূর্তে দেশে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ১০ লক্ষ ৩ হাজার ২৯৯ জন।

Pharmeasy [CPS] IN

ভারতে মোট আক্রান্তের ৮০ শতাংশই সুস্থ হয়েছেন। সুস্থহার হারই আশার জায়গাটি ধরে রেখেছে।গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে যে সংখ্যক করোনার পরীক্ষা হয়েছে, তা গত ১০ দিনের তুলনায় অনেকটা কম। পরীক্ষা হয়েছে মোট ৭ লক্ষ ৩১ হাজার ৫৩৪ জনের।সোমবার ভারতে করোনা সংক্রমণের হার বেড়ে হয়েছে ১১.৮৯%।

SHEIN Many GEO's

উল্লেখযোগ্য যে, প্রতি দিন যত সংখ্যক মানুষের করোনা পরীক্ষা হচ্ছে তার মধ্যে যত শতাংশের কোভিড রিপোর্ট পজিটিভ আসছে, সেটাকেই বলা হচ্ছে পজিটিভিটি রেট বা সংক্রমণের হার।পশ্চিমবঙ্গে প্রতি ২৪ ঘন্টায় কোভিড সংক্রমণ কয়েকদিন ধরেই ৩ হাজারের বেশি হচ্ছে।হিসেব অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে মোট ৩ হাজার ১৭৭ জন নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ লক্ষ ২৫ হাজার ১৩৭ জন।